জরুরি ভিত্তিতে আরো ৪ হাজার নার্স নিয়োগ দিচ্ছে সরকার

কালনী ভিউকালনী ভিউ
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৭:৫৯ PM, ১০ জুলাই ২০২১

কালনী ভিউ ডেস্ক::
জরুরি ভিত্তিতে আরো ৪ হাজার নার্স নিয়োগ দিতে যাচ্ছে সরকার। দেশে করোনা পরিস্থিতির অবনতিতে নার্স নিয়োগের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। বিশেষ করে করোনার ফিল্ড হাসপাতাল স্থাপণ ও বিদ্যামান হাসপাতালগুলোতে শয্যা বাড়ানোয় স্বাস্থ্যকর্মীর সংকট তৈরি হচ্ছে। তাই করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলা ও সরকারি হাসপাতালে সেবার মান বাড়ানোর জন্য এসব নার্স নিয়োগ করা হবে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি নার্স নিয়োগে সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) কাছে একটি চাহিদাপত্র পাঠিয়েছে সরকার। একই সঙ্গে করোনাকালে জরুরি পরিস্থিতি বিবেচনায় আলাদা বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ না করে পিএসসি’র প্রাথমিক বাছাই করা প্রার্থীদের থেকে নিয়োগের নির্দেশও দেয়া হয়েছে।

এদিকে নতুন করে নার্স নিয়োগের কথা নিশ্চিত করেছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক। শনিবার বিএসএমএমইউ কনভেনশন সেন্টার পরিদর্শন কালে তিনি বলেন, ফিল্ড হাসপাতাল বাড়ানোর পাশাপাশি শয্যা বাড়ানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। শুধু শয্যা বাড়ালেই চলবে না। জনবল লাগবে। এজন্য নতুন করে ৪ হাজার নার্স নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। করোনাকালেই এ নিয়ে ৫০ হাজার নার্স নিয়োগ দিয়েছে সরকার।

জানা গেছে, ২০২০ সালের ১ মার্চ এক বিজ্ঞপ্তিতে সিনিয়র স্টাফ নার্স পদের সংখ্যা দুই হাজার ৫০০ জন নার্স নিয়োগের ঘোষণা দেয়া হয়। তবে করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতির অবনতি হলে ওই বিজ্ঞপ্তিতে আবেদন করা প্রার্থীদের মধ্য থেকে ৪ হাজার নার্স নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

এর পরিপ্রেক্ষিতে গত ২৮ জানুয়ারি সিনিয়র স্টাফ নার্স পদের এমসিকিউ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। গত ২৮ ফেব্রুয়ারি এমসিকিউয়ের ফল প্রকাশ করে পিএসসি। এতে উত্তীর্ণ হন ১৫ হাজার ২২৮ জন। এরপর গত ১০ এপ্রিল উত্তীর্ণদের লিখিত পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করে পিএসসি। কিন্তু করোনোর প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় এ লিখিত পরীক্ষা স্থগিত করা হয়। পরে সেই পরীক্ষার পুনর্নির্ধারিত সূচি প্রকাশ করলেও করোনার কারণে পরীক্ষা স্থগিত রেখেছে পিএসসি।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সুত্র বলছে, জরুরি পরিস্থিতি বিবেচনায় আলাদা বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ না করে পিএসসি’র প্রাথমিক বাছাই করা এসব প্রার্থীদের থেকে ৪ হাজার নার্স নিয়োগ করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন :