বৃষ্টি শেষে ভ্যাপসা গরম, যা বলছে আবহাওয়ার পূর্বাভাস

কালনী ভিউকালনী ভিউ
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৮:৫৮ PM, ১৫ জুন ২০২১

কালনী ভিউ ডেস্ক::
গরমকালে গরম পড়বে তেমনি বৃষ্টি হলে আবহাওয়া ঠান্ডা হবে এটাই স্বাভাবিক। তবে বেশ কিছুদিন ধরে বৃষ্টি হলে এর উল্টোটা ঘটছে। হঠাৎ করে গরম বাড়ছে, যা জনজীবনে অস্বস্তি সৃষ্টি করছে।

হঠাৎ এই ভ্যাপসা গরমের কারণ কী? আবহাওয়াবিদদের মতে, এ সময়ে প্রচুর পরিমাণ জলীয়বাস্প ভাসতে থাকে বাতাসে। সূর্যের কিরণ থেকে তাপ এসে এই জলীয়বাষ্পের কণার ভেতর জমা হয়। জলীয়বাষ্প যখন বৃষ্টিতে পরিণত হয় তখন কণার ভেতর থেকে তাপমাত্রাটা বেড়িয়ে আসে। ফলে ভ্যাপসা গরম অনুভূত হয়।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের আহাওয়াবিদ আব্দুর রহমান খান বলেন, আসলে তাপমাত্রাটা এত বেশি ওঠে না। কিন্তু মানুষের ভেতরে অস্বস্তিটা একটু বেশি কাজ করে। এটাই আবহাওয়ার নিয়ম।

তিনি আরো বলেন, এখন রাত ছোট দিন অনেক বড়। এ কারণে সূর্য এখন আমাদের মাথার উপরে থাকে। লম্বাভাবে বেশি কিরণ দেয়। এছাড়াও উত্তর গোলার্ধের জন্য ভূপৃষ্ট বেশি উত্তপ্ত হয়।

(উত্তর গোলার্ধ হল নিরক্ষরেখার উত্তর দিকে অবস্থিত পৃথিবীর অর্ধাংশ পৃথিবীর অক্ষীয় ঢালের কারণে উত্তর গোলার্ধে শীতকাল সূর্যের দক্ষিণায়ন (সাধারণত ২১ ডিসেম্বর) হতে মার্চের মহাবিষুব সাধারণত ২০ মার্চ পর্যন্ত স্থায়ী হয়। আর গ্রীষ্মকাল সূর্যের উত্তরায়ণ সাধারণত ২১ জুন হতে জলবিষুব সাধারণত ২৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত স্থায়ী হয়)।

পরিবেশ ঠান্ডা থাকে গাছপালা বেশি থাকলে এমন মন্তব্য করে আব্দুর রহমান বলেন, গাছপালা পরিবেশের কার্বন-ডাই অক্সাইড গ্রহণ করে এবং অক্সিজেন ত্যাগ করে। ফলে পরিবেশ ঠান্ডা থাকে। আর গাছ যদি কম থাকে তাহলে তুলনামূলক পরিবেশটা গরম থাকবে এটাই স্বাভাবিক। দিন দিন তো পরিবেশ থেকে আমাদের গাছপালা কমে যাচ্ছে। তাছাড়া এটা অনেকটা পরিবেশের নিয়ম।

বর্তমানে লঘুচাপ ও বৃষ্টি সম্পর্কে জানতে চাইলে অধিদপ্তরের এই আহাওয়াবিদ বলেন, এখন আর লঘুচাপ নাই। লঘুচাপটি সাগর থেকে এখন ভারতের ভেতর দিয়ে স্থলে চলে গেছে। এখন সাগরে যেটা আছে সেটা হল মৌসুমী বায়ু। এখন মৌসুমী বায়ুটা সাগরে স্বক্রিয় হয়ে গেছে। এখন যে বৃষ্টি হবে এটা বর্ষাকালের প্রভাবে বৃষ্টি, এটা সিজনাল বৃষ্টি।

আপনার মতামত লিখুন :