আমার লক্ষ্য-আবু ছালেহ

প্রকাশিত: ১১:৪৪ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৯, ২০২১

আসসালামু আলাইকুম আজ আমি আমার নিজ থেকে আমার নির্বাচনী ইস্তেহার তৈরি করলাম আমি চেষ্টা করবো নির্বাচনে জয়ী হয়ে আমার সবগুলো পয়েন্ট নিজ দায়িত্বে পালন করার।

আপনারা একটু মনোযোগ দিয়ে পড়বেন প্লিজ এবং দয়া করে আপাদের কোনো চাহিদা বা ইমপোর্টেন্ট কোনো পয়েন্ট বাদ পরে গেলে কমেন্ট এ বা ইনবক্সে জানাবেন দয়া করে। আমি এড করে নিবো।

গরীবের হক গরীবকে ভোগ করার সুযোগ তৈরি করে দেওয়া।

দূর্বলের উপর সবলের নেতৃত্ব দূর করা।

এলাকার রাস্তা -ঘাট,স্কুল -মাদ্রাসা, মসজিদ- মন্দির, বাজার, হাসপাতালের সংস্করণ করা।

কুশিয়ারা নদী ভাংঙ্গন লক্ষ্যে প্রদক্ষেপ।

এলাকার সালিশ (মুরব্বি) দ্বারা ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করা।

গরীব দুঃখী মানুষের বিপদে তাদের কাছে থেকে যথাসম্ভব সাহায্য করা।

এলাকার মানুষের স্বার্থে জারলিয়া নদিতে বাঁধ তৈরি করা। যাতে করে আমরা জারলিয়া,তারাপাশা,টংগর,
লাড়ইল,পীতাম্বরপুর,মিলনগন্জ বাজারে যেতে খেয়ার অপেক্ষায় ভোগান্তি তে হতে না হয়।

হাতিয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে নাছনি গ্রামের রাস্তা পাঁকা করা বিশেষ করে ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য।

আকিল শাহ বাজার হতে সুরিয়ার পাড়ের রাস্তা সম্পূর্ন পাকা করে মেরামত করা।
কিতাম্ভরপুর টু নাগের গাউ হয়ে বরইত্তর এর আবুরা রাস্তা নির্মাণ করা।

হিন্দু মুসলিম সাম্প্রদায়িকতা ভেঙে সবাইকে এলাকায় সমানভাবে চলাফেরা করার ব্যবস্থা করা।

এলাকার খেলার মাঠ গুলোকে উন্নত ও উন্মুক্ত করে দেওয়া যাতে যুবকের শরীর ও মন চর্চা ভালে থাকে এবং খেলা-ধূলার মাধ্যমে বাজে আড্ডা ও অপকর্ম থেকে বিরত রাখা।

প্রত্যেক বছর কুলঞ্জ ইউনিয়নের সকল গ্রামের যুবকদের নিয়ে ফুটবল, ক্রিকেট ও ব্যাটমিন্টন ইউনিয়ন কাপ প্রতিযোগীতার আয়োজন করা ( এলাকার প্রত্যেকটা মাঠে)।

বেরির বাঁধ গুলো আরো দীর্ঘ মেয়াদি করা ও শক্তিশালী করা যাতে করে কারো ফসল বন্যার পানিতে নষ্ট না হয়।

সরকারি অনাবাদি জমিকে চাষযোগ্য করে গরীবদের চাষ করার ব্যবস্থা করা।

যাদের নিজস্ব বাড়ি নাই তাদের সরকারি খাস জমিতে বাড়ি তৈরির ব্যবস্থা করা।

সরকারি রেশম প্রত্যেক ওয়ার্ডে পৌছানো অথবা সম্ভব হলে প্রত্যেকের বাড়িতে পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করা।

এলাকার যে কোন দূর্যোগে সাধারণ মানুষের পাশে থাকার জন্য একটা যুব সংঘ তৈরি করা।

এলাকা মাদকমুক্ত ও সন্ত্রাস মুক্ত করা।

প্রত্যেকটা শিক্ষার্থীর লেখাপড়ায় মনোযোগ বাড়াতে উপবৃত্তির ব্যবস্হা করা।

আমাদের ইউনিয়নের বেকারত্ব কমিয়ে আনতে একটি কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান স্থাপন করা।

প্রতেক বছর এলাকার ওয়াজ মাহফিলে ভালো বক্তা (ওয়াজি) এনে এলাকায় ওয়াজ নসিবত করে দেওয়ার ব্যবস্থা করা। মসজিদ মাদ্রাসায় ধর্মীয় বিষয়ে ইসলামিক সম্প্রচার চালিয়ে যাওয়া।

আমার ইউনিয়নে মারা যাওয়া অসহায় গরীব মানুষ, যাদের আর্থিক অবস্থা নেই তাদের কে নিজে সামনে থেকে দাফন কাপন এর ব্যবস্থা করে দেওয়া এবং একটি ফিনারেল অফিস এর ব্যবস্থা করা যেখান থেকে অসহায়দের দাফন কাপন এর ব্যবস্থা করা হয়।

ইন-শা আল্লাহ
যদি আল্লাহ চান আর আপনারা আমার জন্য দোয়া করেন এবং আমাকে সহযোগিতা করেন আমি আমার সব গুলো কাজের চেষ্টা চালিয়ে যাবো।

একা কারো পক্ষে কিচ্ছু করা সম্ভব নয়। তাই আমি সব সময় আপনাদের সাহায্যে সহযোগিতা কামনা করি এবং আমি চেষ্টা করবো আমাদের কুলঞ্জ ইউনিয়নকে বাংলাদেশ এর মধ্যে সবচেয়ে সুন্দর ও উন্নত মডেলের ইউনিয়নে রূপান্তর করতে।
এতে দরকার আপনাদের দোয়া সহযোগিতা ও পরামর্শ।
সবার মঙ্গল কামনা করি।

আবু ছালেহ
চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী, কুলঞ্জ ইউনিয়ন, দিরাই, সুনামগঞ্জ।

বিজ্ঞপ্তি