চার ধাপে জীবনযাত্রা স্বাভাবিক হতে যাচ্ছে পর্তুগাল

প্রকাশিত: ৮:৩৫ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৪, ২০২১

কালনী ভিউ ডেস্ক::
যে চার ধাপে জীবনযাত্রা স্বাভাবিক হতে যাচ্ছে পর্তুগালে
পর্তুগাল সরকার লকডাউন উঠিয়ে নিতে বেশকিছু নির্দেশনা দিয়েছে। নতুন বিধিনিষেধগুলো আগামী ১৫ মার্চ থেকে ৩ মে এর মধ্যে কার্যকর হবে।

করোনার ঝুঁকি বুঝে নতুন প্রক্রিয়াটি ধীরে ধীরে কার্যকর হবে। প্রতি ১ লাখ বাসিন্দাদের মধ্যে ১২০ জনের বেশি আক্রান্ত হয় তাহলে প্রতি ১৪ দিন পরপর পুনর্মূল্যায়ন করা হবে।

এছাড়া কিছু ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ধীরে ধীরে খোলা হবে। দেশটির প্রধানমন্ত্রী আন্তোনিও কস্তা জানিয়েছেন, পর্তুগিজ জনগণকে ইস্টার পর্যন্ত সাধারণ লকডাউনের অধীনে বাড়িতে থাকতে হবে।

লকডাউন সহজ করার জন্য দেশটির এই পরিকল্পনা প্রজাতন্ত্রের রাষ্ট্রপতি, মার্সেলো রেবেলো দে সউসা ত্রয়োদশ বারের মতো যখন জরুরি অবস্থার মেয়াদ বৃদ্ধির আদেশ দিয়েছিলেন ৩১ মার্চ পর্যন্ত।

লকডাউন সহজীকরণ প্রক্রিয়ায় নতুন যে বিষয়গুলো সম্পর্কে জানা প্রয়োজন:

১৫ মার্চ থেকে যেসব প্রতিষ্ঠান খোলা যাবে

ডে কেয়ার সেন্টার, শিশুদের প্রাক-স্কুল শিক্ষা এবং প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলার পাশাপাশি একই বয়সের বাচ্চাদের জন্য টিউটরিং কার্যক্রম (এটিএল) শুরু হবে। দোকানের প্রবেশদ্বারে ব্যবসা-বাণিজ্য অনুমোদিত থাকবে এবং হেয়ারড্রেসার, ম্যানিকিউর এবং অনুরূপ ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান খোলার পাশাপাশি বইয়ের দোকান, গাড়ি বাণিজ্য, রিয়েল এস্টেট, গ্রন্থাগার এবং সংরক্ষণাগারগুলো খোলা রাখা যাবে।

৫ এপ্রিল থেকে খোলা হবে

দ্বিতীয় পর্যায়ে, দ্বিতীয় এবং তৃতীয় চক্রের শিক্ষার্থীরাসহ প্রতিবন্ধী হওয়ার ক্ষেত্রে একই বয়সের সামাজিক সুবিধার জন্য প্রশিক্ষণ কার্যক্রম (এটিএল) সামনা-সামনি বা সরাসরি শিক্ষা কার্যক্রমে ফিরে আসবে। এই তারিখে, ২০০ বর্গমিটার এলাকা এবং রাস্তায় দরজাসহ জাদুঘর, স্মৃতিসৌধ, প্রাসাদ এবং আর্ট গ্যালারি অন্যান্য দোকান খোলা যাবে। বিভিন্ন মেলা এবং খাদ্যহীন বাজারগুলো আবার শুরু হবে, তবে তা প্রত্যেক পৌরসভা পর্যায়ে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

১৯ এপ্রিল থেকে খোলা হবে

মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং বিশ্ববিদ্যালয় পুনরায় চালু করা হবে। সিনেমা, থিয়েটার, অডিটোরিয়াম এবং কনসার্ট পুনরায় চালু করার পরিকল্পনা করা হয়েছে। নাগরিক সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাপয়েন্টমেন্টের মাধ্যমে মুখোমুখি বা সরাসরি পরিষেবা দেয়া শুরু করবে। পাশাপাশি সমস্ত দোকান এবং শপিং সেন্টারও খোলা হবে।

রেস্টুরেন্ট ও ক্যাফে খোলার জন্য অনুমোদিত হবে, তবে একটি টেবিলে ভেতরে ছয়জন সর্বাধিক ধারণ-ক্ষমতা এবং ছাদের উপর ছয়জন এবং সপ্তাহের সাধারণ দিনে রাত ১০টা পর্যন্ত এবং সাপ্তাহিক ছুটির সময় রাত ১টা পর্যন্ত খোলা রাখা যাবে। শারীরিক ব্যায়াম করা যাবে বাইরে একসাথে ছয়জনের একটি গ্রুপ, পাশাপাশি মাঝারি ঝুঁকিপূর্ণ খেলাধুলা অনুমোদিত থাকবে।

পরিকল্পনায় আরও বলা হয়েছে, মোট সক্ষমতার ২৫ শতাংশের মধ্যে যে কোনো বিবাহ অনুষ্ঠানসহ অন্তোষ্টিক্রিয়া ও পারিবারিক অনুষ্ঠান আয়োজন করা যাবে।

৩ মে থেকে খোলা হবে

৩ মে থেকে রেস্তোরাঁ, ক্যাফে এবং প্যাস্ট্রিশপগুলি সময়সীমা ছাড়াই চলতে পারে তবে ভেতরে একটি টেবিলের মধ্যে ৬ জন এবং ছাদের উপরে ১০ জন সীমাবদ্ধ থাকবে। এছাড়াও, সমস্ত খেলাধুলা, বহিরঙ্গন ক্রীড়া এবং জিমের কোনও ধরনের বিধিনিষেধ থাকবে না।

এই তারিখ থেকে বড় বড় সকল আউটডোর ইভেন্ট ও অনুষ্ঠান সমূহের আয়োজন করা যাবে তবে তা সক্ষমতার চেয়ে কম সংখ্যক উপস্থিতি থাকবে এবং বিবাহ ও অন্ত্যোষ্টিক্রিয়ার অনুষ্ঠানে ৫০ শতাংশ উপস্থিতি করা যাবে।

ইস্টার সময় পর্যন্ত এক পৌরসভা থেকে অন্য পৌরসভার মধ্যে চলাচল নিষিদ্ধ প্রসঙ্গে

পর্তুগালের মূল ভূখণ্ডে পৌরসভাগুলোর মধ্যে ২০ এবং ২১ মার্চের সাপ্তাহিক ছুটির দিনে এবং ইস্টার সময়কালে ২৬ মার্চ থেকে ৫ এপ্রিলের মধ্যে এক শহর থেকে অন্য শহরে যাতায়াত নিষিদ্ধ থাকবে। এই ব্যবস্থাটি বার্তা দিচ্ছে যে ‘ইস্টার এই বছর পারিবারিক ভ্রমণ বা সাক্ষাতের সময় নয়, বরং লকডাউনের আরও একটি মুহূর্ত’, যা প্রধানমন্ত্রী পুনরায় স্মরণ করিয়ে দেন।

ইস্টার পর্যন্ত লকডাউনের সাধারণ দায়িত্ব :

লকডাউনের সাধারণ নিয়ম-কানুন সমূহ ইস্টার পর্যন্ত চলবে। প্রধানমন্ত্রী আন্তোনিও কোস্টা উল্লেখ করেন, এটি একটি ‘সাধারণ নিয়ম’ যা আগামী সপ্তাহগুলোতে বজায় রাখা আবশ্যক, যার অর্থ মানুষের যখনই সম্ভব বাড়িতে থাকা উচিত। ইস্টার পরে সাধারণ লকডাউন পুনর্নির্ধারণ করা হবে।

স্পেনের সঙ্গে সীমানা ইস্টার পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। স্কুলগুলোতে নতুন করোনাভাইরাস স্ক্রিনিং টেস্ট প্রোগ্রাম কোভিড- ১৯ এর চালু থাকবে সম্ভাব্য কেসগুলি শনাক্ত করতে। বিভিন্ন ধরনের শিক্ষা কার্যক্রম পুনরায় খোলার উপর সার্বক্ষণিক নজরদারি করা হবে।

মহামারি সংক্রমণ ঠেকানোর জন্য সরকারের পরিকল্পনায় বলা হয়েছে, লকডাউনের সাধারণ নিয়মের অংশ হিসেবে দূরবর্তী বা বাসা থেকে কাজ চালিয়ে যাওয়া উচিত।