ঢাকারবিবার , ১৪ মার্চ ২০২১
  1. অর্থনীতি
  2. আইটি
  3. আন্তর্জাতিক
  4. খেলাধুলা
  5. জাতীয়
  6. দিরাই শাল্লার খবর
  7. ধর্ম
  8. প্রবাস
  9. বিনোদন
  10. মুক্ত মতামত
  11. মুক্তমত
  12. মৌলভীবাজার
  13. রাজনীতি
  14. লিড নিউজ
  15. শিক্ষা

ছাত্রলীগের সভাপতি জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক’র সভায় উপেক্ষিত স্বাস্থ্যবিধি

কালনী ভিউ
মার্চ ১৪, ২০২১ ১১:৪৮ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

কালনী ভিউ ডেস্ক:
সিলেট নগরের কবি নজরুল অডিটোরিয়ামে সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের কর্মীসভা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এতে যোগ দেওয়ার জন্য সিলেটে এসেছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় এবং সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য।

এই কর্মীসভাকে ঘিরে উৎসবের আমেজে মেতেছেন সিলেটের ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা। জড়ো হয়েছেন নগরের রিকাবীবাজারস্থ কবি নজরুল অডিটোরিয়ামের কর্মীসভাস্থলে। এ সময় অডিটোরিয়াম চত্বরে উপস্থিত ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের মধ্যে মাস্কের ব্যবহার লক্ষ্য করা যায়নি। কিছু কিছু ক্ষেত্রে মাস্কের ব্যবহার দেখা গেলেও সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি সেভাবে মানা হচ্ছে না। উপেক্ষিত থেকেছে করোনাকালীন সরকারের বেঁধে দেয়া স্বাস্থ্যবিধি।

সভাস্থল ঘুরে সরেজমিনে দেখা যায়, সেখানে উপস্থিত হয়েছেন সিলেটের সহস্রাধিক নেতা-কর্মী। যাদের ৯০ শতাংশের মুখে মাস্ক ছিলো না। এমনকি মাস্ক ছিলো না বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় এবং সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের মুখেও। তাদেরকে শুভেচ্ছা জানাতে আসা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরাও মাস্কবিহীন। আর যাদের মধ্যে মাস্ক ব্যবহার লক্ষ্য করা গেছে তাদের করো মাস্ক কানে ঝুলছিলো অথবা থুতনির নিচে ছিলো মাস্ক।

এদিকে দেশে নতুন করে করোনার সংক্রমণ বাড়তে শুরু করেছে। এছাড়া সিলেটসহ রাজধানী ঢাকায় শনাক্ত হয়েছে যুক্তরাজ্যে শনাক্ত হওয়া করোনার নতুন ধরন। এমতাবস্থায় সরকারের পক্ষ থেকে দেওয়া হয়েছে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নির্দেশ। তবুও সিলেটে চলমান ছাত্রলীগের কর্মীসভার উপেক্ষিত থেকে গেছে সরকারের দেওয়া সেই নির্দেশনা।

এ ব্যাপারে সভায় যোগ দিতে আসা এক ছাত্রলীগ কর্মীর সাথে কথা হলে তিনি বলেন, ‘বাইরে প্রচণ্ড গরম পড়েছে তাই বেশিক্ষণ মাস্ক পরে থাকা সম্ভব নয়। তার মধ্যে আমরা যখন এখানে এসেছি তখন র‍্যালি নিয়ে এসেছি, সে সময় মাস্ক ঘেমে যাওয়ায় সেটি ফেলে দিই।’

এতে করে নিজেকে কতটুকু নিরাপদ মনে করছেন জানতে চাইলে তিনি জানান, ‘এতদিন যখন কিছু হয়নি, আর কিছুই হবে না ইনশাল্লাহ। আল্লাহ ভরসা’।

সেখানে উপস্থিত আরও অনেকের সাথে কথা বলে সকলের মধ্যেই মাস্ক ব্যবহারে অনীহা লক্ষ করা গেছে। এছাড়া সেখান উপস্থিতিরা একে অন্যের সাথে করছেন করমর্দন, এমনকি বুক মেলাতেও দেখা গেছে অনেককে। তাদের মধ্যে অনেকের সাথে কথা হলে সকলই একই কথা জানান, কিচ্ছু হবেনা। আমরা সকলেই নিরাপদ আছি।

এদিকে করোনার সংক্রমণ রোধে ও এর ঝুঁকি এড়াতে স্বাস্থ্য নির্দেশনা মেনে চলা জরুরি ও এর কোনো বিকল্প নেই বলে মনে করছেন চিকিৎসকরা।

এ ব্যাপারে সিলেটের করোনা আইসোলেশন সেন্টার সিলেট শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা. সুশান্ত কুমার মহাপাত্র বলেন, দেশে নতুন করে করোনার সংক্রমণ বাড়তে শুরু করেছে। এখন সকল নাগরিকের উচিৎ পূর্বের ন্যায় সচেতন হওয়া। একই সাথে সরকারের পক্ষ বেঁধে দেওয়া সকল স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা উচিৎ সকলের। নতুবা নতুন করে বিপদ আরও বাড়তে পারে বলে মনে করেন তিনি।

সিলেটে নতুন করে রোগী বাড়ছে জানিয়ে তিনি বলেন, হাসপাতালে করোনা রোগী বাড়ছে, একইসাথে বাড়ছে করোনার উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রোগীর সংখ্যা। তাই এখন থেকেই আমাদের সচেতন হতে হবে।

একইসাথে সরকারের পক্ষ থেকে জনসচেতনতামূলক প্রচার প্রচারণা আরও বাড়াতে হবে জানিয়ে তিনি বলেন, সরকার প্রথম থেকে যেমন পদক্ষেপ নিয়েছিলো স্বাস্থ্যবিধির ব্যাপারে, বর্তমানে আগের মতো সেটা লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। সরকারের পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকেও জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে এগিয়ে আসার আহ্বান এই চিকিৎসক।

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।